Goodman Travels

বিমান প্রতিমন্ত্রীর ঈশ্বরদী বিমানবন্দর পরিদর্শন।। চালুর দাবিতে ঈশ্বরদী বাসির মানববন্ধন 

বিশেষ প্রতিনিধিঃ আজ শুক্রবার ঈশ্বরদীতে বিমান বন্দর পরিদর্শনে আসেন বে-সামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মাহাবুব আলী।
এদিকে ঈশ্বরদী বাসির দীর্ঘদিনের প্রানের দাবী বন্ধ হয়ে যাওয়া বিমানবন্দর চালুর দাবিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মানববন্ধন করে। 
প্রতিমন্ত্রী রুপপুর পারমাণবিক প্রকল্প পরিদর্শন শেষে,  বন্ধ থাকা বিমান বন্দর পরিদর্শনে যাওয়ার পূর্বে রাত ৮ টায় ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে ঈশ্বরদী খায়রুজ্জামান বাবু বাস টার্মিনালে বিমান প্রতিমন্ত্রীর গণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নায়েব আলী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে গন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু এম পি, পাবনা ৪ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাস,পাবনা সিরাজগঞ্জের সংরক্ষিত আসনের সাংসদ নাদিয়া ইয়াসমিন জলি, আরো উপস্থিত ছিলেন ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র ইছাহক আলী মালিথা,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সালাম খান, উপজেলা কৃষক লীগের যুগ্ম আহবায়ক মুরাদ আলী মালিথা প্রমূখ।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার প্রধান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাসি।
 তিনি বলেন বাংলাদেশের মধ্যে পাবনা জেলায় সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন মূলক কাজ করেছে সরকার। ঈশ্বরদীতে ইপিজেড, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মেগা প্রোজেক্ট রুপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ চলছে।
ঢাকা – সৈয়দপুর, ঢাকা -চট্টগ্রাম, ঢাকা – কক্সবাজার রুটে একাধিক বিমান চলাচল করছে।
মন্ত্রী বলেন, পাবনা ৪ আসন সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাস, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু ভাই সহ সকলকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে  বিমান বন্দর চালুর ব্যাপারে আলোচনা করে বিমান বন্দর চালু করার ব্যাবস্থা করবেন বলে ঈশ্বরদী বাসীকে আশা প্রদান করেন।
অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু।
২০১৪ সালে সর্বশেষ ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ফ্লাইট নেমেছিল  ঈশ্বরদী বিমানবন্দরে। এরপর আর কোনো যাত্রীবাহী ফ্লাইট এখানে অবতরণ করেনি। দেশের সব বেসরকারি এয়ারলাইন্স কোম্পানি, পাবনা জেলা প্রশাসক ও ঈশ্বরদীবাসীর দীর্ঘদিনের দাবির পরও চালু করা হয়নি বিমানবন্দরটি।
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ বেশকিছু উন্নয়ন প্রকল্প চলছে পাবনায়। বিদেশি নাগরিকসহ গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের নিয়মিত যাতায়াত করতে হয় সেখানে। এছাড়া স্থানীয় ব্যবসা-বাণিজ্যের অনেক প্রসার ঘটেছে এরই মধ্যে। ঢাকা-চট্টগ্রাম দ্রুত যাতায়াতের জন্য বিমানবন্দরের বিমান পরিবহনের চাহিদা তৈরি হয়েছে। এসব কারণে সাত বছর ধরে বন্ধ থাকা ঈশ্বরদী বিমানবন্দরটি অবিলম্বে খুলে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এটি চালু হলে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এয়ারলাইন্স ব্যবসায়ী উভয়ে লাভবান হবে, পাশাপাশি সরকারেরও রাজস্ব আয় হবে বলে মনে করছেন তারা।
দীর্ঘ ১৭ বছর পর ২০১৩ সালে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ ঈশ্বরদী বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করে। কিন্তু ছয় মাস ১১ দিন চালু থাকার পর ২০১৪ সালের ২৯ মে আবার বন্ধ হয়ে যায় এটি। গত সাত বছরে এ বিমানবন্দরে কোনো যাত্রীবাহী ফ্লাইট ওঠা-নামা করেনি। তবে মাঝেমধ্যে বিমান বাহিনীর প্রশিক্ষণ বিমানগুলোকে এটি ব্যবহার করতে দেখা গেছে।