Goodman Travels

নবীগঞ্জে সরকারি নার্সরী থেকে ১৫ লক্ষাধিক টাকার গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়ন পরিষদের হালিতলা তামাশপুর এলাকায় হালিতলা নার্সারী নামক একটি সরকারি নার্সারী থেকে প্রায় ১৫ লক্ষাধিক টাকার সরকারি গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এছাড়াও সরকারি ঘর স্থাপনা ভেঙে বিক্রিরও অভিযোগ রয়েছে।। অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হালিতলা মৌজার সাবেক ১৫৩০,১৫১২ ও ৩৭৭ নং দাগের ভূমিতে সরকার ১৯৮৫/৮৬ সালে হালিতলা নার্সারী নামে একটি নার্সারী করে সেখানে ৭/৮ টি পুকুর খনন করে পুকুর পাড়ে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের ছাড়া রোপণ করে তা রক্ষনা বেক্ষন করে আসছিলেন। বিগত ৭/৮ বছর পূর্বে হঠাৎ উল্লেখিত গ্রামের মৃত সুবল ঘোষের পুত্র ভূমি খেকো বলরাম ঘোষ ওরপে বলাই ঘোষ পাশ্ববর্তী জন্তরী গ্রামের স্বপন পুরকায়স্থ সুদিপ গংদের নামে অবমুক্তির মামলাসহ ভূয়া ওয়ারিশান সনদ দিয়ে অবৈধভাবে নামজারী হাসিল করে বলাই তার নামে রেজিষ্ট্রি করে সরকারি জায়গার মালিক হওয়ার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে নবীগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর অফিসে বিবিধ মামলা ০৬/২০১৪ দায়ের হলে শুনানি শেষে বলাইয়ের নামজারি বাতিল হয়। কিন্তু বলাইয়ের অপতৎপরতা চলতে থাকে। বলাই অদৃশ্য শক্তির সহযোগিতায় উল্লিখিত নার্সারী থেকে বিভিন্ন সময়ে প্রায় ১৫ লক্ষাধিক টাকার বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে অবৈধভাবে বিক্রি করে। এছাড়া সরকারি জায়গায় অবৈধভাবে ঘর নির্মান করে দখল করে বসে থাকলেও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ কোন ব্যবস্হা গ্রহন না করায় সরকারি এ বিশাল সম্পত্তি বেহাত হবার আশংকা রয়েছে। গাছ বিক্রি ছাড়াও বলাই উল্লিখিত জায়গায় সরকারি ঘর ভেঙে ইট, টিন ও কাঠ বিক্রি করেছে বলেও অভিযোগ রয়েছে বলাই ঘোষের বিরুদ্ধে। গত ১৯ অক্টোবর পৌরসভার সাবেক কমিশনার জয়নাল আবেদীন এ ব্যপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহনের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টির ব্যপারে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী