Goodman Travels

ঈশ্বরদীতে ৫০ গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে বসত বাড়ী 

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মুজিব জন্মশতবর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে সারা দেশের ন্যায় ঈশ্বরদীতে ৫০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পাচ্ছে বসত বাড়ী। গৃহহীনদের মাঝে দুই শতক জমিসহ সেমি পাকাঘর হস্তান্তর করা হবে বলে সংশিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। প্রত্যেকটি বাড়ী গৃহ নির্মান ব্যায় (১ লক্ষ ৭১ হাজার ৪ শত টাকা)। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ১ম পর্যায় আগামী ২৩ জানুয়ারি আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরগুলি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স’র মাধ্যমে গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করার কথা রয়েছে। ঈশ্বরদী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
উপজেলা প্রশাসন সুত্রে জানাগেছে মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ঈশ্বরদী উপজেলায় ৫০ টি পরিবার গৃহহীন আশ্রয়ন প্রকল্পে দুই শতক জমিসহ সেমি পাকাঘর পাবে। ইটের দেয়াল, কংক্রিটের মেঝে এবং রঙিন টিনের ছাউনি দিয়ে তৈরি দুইটি কক্ষের আবাসন। আরও থাকছে একটি রান্নাঘর, টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দা। ইউপি চেয়ারম্যানরা ছিন্নমূল ও ভূমিহীন পরিবারের তালিকা পাঠান সংশিষ্ট দপ্তরে। সেসব তথ্য উপজেলা ভূমি অফিস থেকে জমি-বাড়ি নেই এমন পরিবারের তালিকা যাচাই-বাছাই করে পাঠানো হয় সংশিষ্ট মন্ত্রণালয়ে। গৃহহীনদের তালিকা চুড়ান্ত করা হয়েছে। ঘরগুলো যাতে টেকসই এবং মানসম্মত হয় সেজন্য জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের মনিটরিং কমিটি নিয়মিত তদারকি করছেন। ইতমধ্যে ঘরগুলি নির্মাণকাজ প্রায় শেষ পর্য়ায়ে। ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়ন ৩৩,সাঁড়া ইউনিয়ন ০৭, লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়নের ১০ টি পরিবার বসত বাড়ী পাবে।
ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পি.এম.ইমরুল কায়েস জানান, প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার মুজিববর্ষে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণাকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এই কার্যক্রম। প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনরাই পাবেন এ ঘরগুলো। এর ফলে পরিবারগুলো পাবে সামাজিক মর্যাদা ও নতুন ঠিকানা। ঘর বরাদ্দে কোন ধরনের অনৈতিক সুযোগ-সুবিধা না নিতে পারে সে জন্য সঠিকভাবে তদারকি করা হচ্ছে। পাশাপাশি নির্মাণাধীন ঘরের কাজের মান শতভাগ ঠিক রাখতে প্রতিনিয়ত মনিটরিং করা হচ্ছে।