Goodman Travels

ঈশ্বরদীতে পাশাপাশি ২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড।।ব্যপক ক্ষয় ক্ষতি 

বিশেষ প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরদীর বহরপুরে গভীর রাতে  মনিরুল আয়রন স্টোর ও মনিরুল পেপার স্টোরপাশাপাশি দুইটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড সংগঠিত হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে বিদ্যুৎ এর শর্ট সার্কিট থেকে গোডাউনে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে প্রতিষ্ঠানের মালিক মনিরুল ইসলাম  এবং ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও সিভিল ডিফেন্স সূত্রে জানা গেছে।
প্রসেসিং পলিথিন, পেপার,প্লাস্টিক টিন সহ ৬টি গোডাউন সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।
রাত ১টা থেকে ৪টা পর্যন্ত ঈশ্বরদী,ঈশ্বরদী ইপিজেড, পাবনা ও আটঘরিয়া ৪টি ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট ৩ ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
মনিরুল আয়রন স্টোর ও মনিরুল পেপার স্টোরের মালিক মনিরুল ইসলাম ও আব্দুল লতিফ সাংবদিকদের জানান পলি,প্রপ্রসেসিং পলিথিন, পেপার,প্লাস্টিক টিন ৩টি মটোর,৩টি প্রসেসিং মেশিন,  ৬টি গোডাউন সহ মোট আড়াই কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে।
মনিরুল ইসলাম ও আব্দুল লতিফ আরো জানান, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ঈশ্বরদী শাখা, উত্তরা ব্যাংক ঈশ্বরদী শাখা, ও লঙ্কা বাংলায় তাদের ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা লোন রয়েছে।দেড় শতাধিক শ্রমিক ২ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতো।বর্তমানে তারা কর্মহীন হয়ে পড়লো।
ইতিমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পি এম ইমরুল কায়েস, মুলাডুলি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক, ও ব্যাংক কর্মকর্তারা, তাদের পুড়ে যাওয়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেছে।
ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইনচার্জ ওয়ার হাউজ ইনস্পেকটর অপু কুমার মন্ডল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা সংবাদ পাওয়ার সংগে সংগেই ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করি। পরে ঈশ্বরদী ইপিজেড, পাবনা ও আটঘরিয়া ৪টি ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট ৩ ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই।
মনিরুল আয়রন স্টোর ও মনিরুল পেপার স্টোরের মালিক মনিরুল ইসলাম ও আব্দুল লতিফ এ ব্যাপারে ঈশ্বরদী থানায় সাধারণ ডায়েরি ও ফায়ার রিপোর্টের জন্য ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স এ আবেদন করেছে বলে জানা গেছে।